মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান ২০২৪

মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যা আসলেই অনেক বিরক্তিকর একটা ব্যাপার।  যখনই আমাদের মোবাইলে ভালো নেটওয়ার্ক থাকার প্রয়োজন বেশি পরে তখনই নেটওয়ার্কের সমস্যা শুরু হয়।  ধরুন আপনি কারো সাথে  কলে কথা বলছেন ঠিক সেই সময় আপনার নেটওয়ার্কে সমস্যা করতে শুরু করলো। আবার আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজিং করছেন সেই সময় নেটওয়ার্কের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান ২০২৪

যেহেতু নেটওয়ার্কের সমস্যা আমাদের জন্য অনেক বিরক্তিকর একটা ব্যাপার সেহেতু মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান করা খুব জরুরী।  আর তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমরা এ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।  আর্টিকেলটি সম্পন্ন করার পর আপনিও মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যা সমাধান করতে পারবেন।

মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান

মোবাইলে নেটওয়ার্ক সমস্যা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। আপনি হয়তো এমন একটি এলাকায় বসবাস করেন যেখানে আশেপাশে কোনো টাওয়ার নেই। বা আরো অনেক কিছুই হতে পারে। সবকিছু বিবেচনায় রাখার পর মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান নিম্নে দেওয়া হলো।

মোবাইল রিস্টার্ট (Restart) করা 

মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যা করলে এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের প্রথমে যে কাজটা করা উচিত সেটা হচ্ছে মোবাইলকে রিস্টার্ট করে দেওয়া। মোবাইল রিস্টার্ট করলে আমাদের ফোনের রেম ক্লিন হয়ে যাবে। অপরদিকে সিম পুনরায় আমাদের ফোনের সাথে কানেক্ট করবে। ফলে আপনার মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে পারে।

মোবাইলের এরোপ্লেন মোড একবার অন করে আবার অফ করে দেওয়া 

প্রায় প্রতিটি ফোনে এরোপ্লেন মোড বলে একটি অপশন থাকে। আপনি যদি আপনার ফোনের নোটিফিকেশন প্যানেলটি ওপেন করেন তাহলে সেখানে এরোপ্লেনের একটি আইকন পাবেন।অপশনটি অন করলে আপনার ফোনে নেটওয়ার্ক অফ হয়ে যাবে। অর্থাৎ আপনি কাউকে কল করতে পারবেন না আবার আপনাকে কেউ কল করলেও সেই কল আপনার ফোনে ঢুকবে না। এই অপশনটি অন করে কিছুক্ষণ পর আবার অফ করে দিলে সমস্যার সমাধান হতে পারে। 

সিম 2G, 3G নাকি 4G সেটা চেক করা

আপনার সিম যদি 2G হয় তবে আপনার নেটওয়ার্ক স্পিড খুব একটা ভালো পাবেন না। অপরদিকে আপনার সিম যদি 4G হয় সে ক্ষেত্রে নেটওয়ার্কের স্পিড অনেক বেশি পাবেন। সেজন্য সেম 2G, 3G নাকি 4G সেটা চেক করে নেওয়া খুবই জরুরী। যদি আপনার সিম 2G অথবা 3G হয় সে ক্ষেত্রে আপনি এটিকে আপডেট করে 4G করতে পারেন।

তবে একটা বিষয় মনে রাখতে হবে আপনার ফোনের প্রসেসর যদি 3G হয় এবং সেই ফোনে আপনি 4G সিম ব্যবহার করলেও সেটা আপনাকে 3G র মতো স্পিড দিবে। যদিও এখনকার সব ফোনে 4G প্রসেসর রয়েছে। তবে পুরাতন কিছু ফোনে 3G প্রসেসর থাকতে পারে।

কানেকশন এ নেটওয়ার্ক মোড চেঞ্জ করে দেওয়া

আপনার ফোনের সেটিংসে গেলে সেখানে কানেকশনস বলে একটি অপশন পাবেন। সেখান থেকে Sim card manager আসলে আপনার ফোনে যতগুলো সিম রয়েছে সেগুলো দেখতে পাবেন। আর এর পাশে 2G, 3G, 4G অথবা LTE লেখা থাকতে পারে।এখানে ক্লিক করে নেটওয়ার্ক মোডে যে কিছুটা চেঞ্জ করে যেতে পারে। আসলে সব এলাকায় 3G অথবা 4G সাপোর্ট করে না। সেক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক টাইপটা চেঞ্জ করে দিয়ে দেখা যেতে পারে যে, কোনটাতে ভালো নেটওয়ার্ক পাচ্ছে।

সিম পরিবর্তন করা

অনেক সময় সিমের সমস্যার কারণেও নেটওয়ার্কের সমস্যা হয়। আবার কাস্টমার কেয়ার থেকে সিম বন্ধ করে দিলেও ফোনে নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না। এজন্য সিম পরিবর্তন করে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব হতে পারে।

সিম কার্ডটি অন্য স্লটে ব্যবহার করা

সাধারণত ফোনে সিমকার্ডের জন্য একাধিক স্লট থাকে। স্লটে সমস্যা থাকলেও নেটওয়ার্কের সমস্যা হতে পারে। সেজন্য সিম এক স্লট থেকে অন্য স্লটে নিয়ে যেয়ে দেখা যেতে পারে।

নেটওয়ার্ক অপারেটর ম্যানুয়ালি সিলেক্ট করা

মোবাইলে সেটিংস (Settings) অপশনটি ওপেন করুন। তারপর কানেকশন (Connections) এ যেয়ে মোবাইল নেটওয়ার্কস (Mobile  networks) সিলেক্ট করুন।তারপর নেটওয়ার্ক অপারেটরস (Network operators) এ আপনার নেটওয়ার্ক অপারেটর ম্যানুয়ালি সিলেক্ট করে দিন।

Access Point Name (APN) রিসেট করা

আপনার মোবাইলের সেটিং অপশন থেকে Sim card settings অপশনটি খুঁজে নিতে হবে। বিভিন্ন ফোনে এই অপশনটি বিভিন্ন ভাবে থাকতে পারে।  অপশনটিতে আসার পরে APN (Access Point Name)এ সিলেক্ট করে Reset to default বাটনে ক্লিক করতে হবে। তাহলে আপনার Access Point Name (APN) রিসেট হয়ে যাবে। এই কাজটি করার ফলে আপনার মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে পারে।

নেটওয়ার্ক বুস্টার ব্যবহার করা

নেটওয়ার্ক বুস্টার হল এক ধরনের ডিভাইস। যা আপনার আশেপাশের নেটওয়ার্ককে বুস্ট করতে সাহায্য করবে।অনেক সময় দেখা যায় আমাদের বাসার কাছেই টাওয়ার কিন্তু আমাদের ঘরের ভিতরে ভালো নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না। বিশেষ করে গ্রাম্য এলাকায় এ ব্যাপারটি বেশি দেখা যায়।

আসলে নেটওয়ার্কে ঢেউগুলো টিনভেদ করে ভালোভাবে ঘরে ঢুকতে পারে না আবার বেশি গাছপালার জন্য নেটওয়ার্ক ঘরের মধ্যে আসতে পারে না। সেই ক্ষেত্রে এই নেটওয়ার্ক বুস্টার ডিভাইসটি ব্যবহার করলে আপনি ভালো নেটওয়ার্ক পাবেন।

তবে এখানে একটি বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। সেটা হল আপনার এলাকায় নেটওয়ার্ক আছে কিন্তু আপনার ঘরে নেটওয়ার্ক নাই সে ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক বুস্টার কাজ করবে। কিন্তু যদি আপনার এলাকায় নেটওয়ার্ক না থাকে সেক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক বুস্টার আপনার জন্য খুব একটা উপকারী হবে না।তাই আপনি যদি নেটওয়ার্ক জনিত সমস্যায় ভুগে থাকেন, তাহলে নেটওয়ার্ক বুস্টার ডিভাইসটি ব্যবহার করে আপনার নেটওয়ার্ক কয়েক গুণ পর্যন্ত বুস্ট করতে পারেন।

মোবাইল সার্ভিসিং করানো

মোবাইলের টেকনিক্যাল সমস্যার জন্য নেটওয়ার্কের সমস্যা হতে পারে।আপনার হাত থেকে হয়তো ফোনটি পড়ে গেলে  অথবা পানিতে ফোন পড়ে গেলে মোবাইলে নেটওয়ার্ক সমস্যা হতে পারে।  সে ক্ষেত্রে নিকটস্থ সার্ভিস সেন্টারে যেয়ে নিজের মোবাইল সার্ভিসিং করাতে হবে। সার্ভিসিং করালে আপনার সমস্যাটি সমাধান হয়ে যাবে।

উপরোক্ত মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান এর উপায় গুলো অবলম্বন করার মাধ্যমে আপনি এর বিরক্তিকর সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন। 

শেষ কথা

মোবাইলে নেটওয়ার্ক সমস্যা করলে অবশ্যই তার কারণ খোঁজার চেষ্টা করতে হবে। পরবর্তীতে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। উপরে দেখানো উপায় গুলো অবলম্বনের মাধ্যমে আশা করি আপনার ফোনের নেটওয়ার্কের সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে। তবে যদি আপনি নেটওয়ার্কের সমস্যার সমাধান করতে ব্যর্থ হন তবে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে আমাদেরকে জানাতে পারেন। আমরা আপনাকে সাহায্য করার যথাসাধ্য চেষ্টা করব। 

আজকে এই পর্যন্তই। ধন্যবাদ। 


Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url