১৫০০০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে যত সব মোবাইল ফোন

আজকাল মোবাইল ফোন জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ। বাজারে যেমন লাখ টাকার মোবাইল রয়েছে, তেমনি মাত্র ৪ হাজার টাকার ভেতরেও ভালো মানের মোবাইল সহজেই পাওয়া যায়। ব্র্যান্ড ও কোয়ালিটি ভেদে মোবাইল ফোনের দামের এমন ভিন্নতা দেখা যায়। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যাদের জন্য মোবাইল ফোন বিলাসিতা নয়, বরং অতি প্রয়োজনীয় একটি ডিভাইস মাত্র। 

১৫০০০ হাজার টাকা বাজেটের মধ্যে যত সব মোবাইল ফোন

তাদের জন্য লাখ টাকার মোবাইল তো দূরের কথা, মোটামুটি ১০০০০ থেকে ১৫০০০ টাকার উপরে মোবাইলের জন্য খরচ করা মানে অযাচিত খরচ ছাড়া কিছুই নয়। এসব ব্যাপার মাথায় রেখে আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম ১৫০০০ টাকা বাজেটের মধ্যে কিছু মোবাইল ফোন। 

Vivo Y20

এই মোবাইলটির সবথেকে বড় ভালো দিক হলো,মাত্র ১৪৯৯৯ টাকা দামের মধ্যে পাচ্ছেন ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল করে ২ টি ডেপথ ও ম্যাক্রো সেন্সর দেয়া রেয়ার ক্যামেরা এবং ৮ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা। এছাড়াও মোবাইলটির ইন্টারফেস ডিজাইন খুব কমফোর্টেবল। মোবাইলটির ডিসপ্লে ৬.৫১” IPS LCD রেজ্যুলেশনের। র‍্যাম হচ্ছে ৪ জিবি, স্টোরেজ ৬৪ জিবি, ব্যাটারি ৫০০০ মিলি এম্পিয়ার। তার সাথে রয়েছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার। 

Samsung Galaxy M11

মাঝারি রেঞ্জের দামের মধ্যে স্টাইলিশ মোবাইল চাইলে নিয়ে নিতে পারেন এই ফোনটি। ৬.৪” PLS TFT রেজ্যুলেশনের মোবাইল্টিতে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ৫ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা ওয়াইড, ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ ও ৮ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড সেন্সর ওয়ালা ৩ টি রেয়ার ক্যামেরা এবং ৮ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা তো আছেই। ১৪০০০ টাকার মোবাইলটির র‍্যাম ৩ জিবি, স্টোরেজ ৩২ জিবি, ব্যাটারি ৫০০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১৫ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার।

Oppo A33 (2020)

এই মোবাইলটির সবথেকে সেরা দিক হলো, এটায় রয়েছে ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট, অর্থাৎ মাল্টিটাস্কিং বা একসাথে কয়েকটি কাজ করা হবে খুবই আরামদায়ক। গেমিং এর ক্ষেত্রেও পাওয়া যাবে ভালো পার্ফর্মেন্স। দামের রেঞ্জ অনুযায়ী এর ক্যামেরাও যথেষ্ট ভালো। মাত্র ১৩৯৯৯ টাকা দামের মধ্যে পাচ্ছেন ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল করে ২ টি ডেপথ ও ম্যাক্রো সেন্সর দেয়া রেয়ার ক্যামেরা এবং ৮ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা। 

মোবাইলটির ডিসপ্লে ৬.৫” IPS LCD রেজ্যুলেশনের। র‍্যাম পাবেন ৩ জিবি, স্টোরেজ ৩২ জিবি, ব্যাটারি ৫০০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার। 

Xiaomi Redmi 8

মাঝারি দামের মধ্যে ভালো কোয়ালিটির আরেকটি মোবাইল হচ্ছে শাওমি কোম্পানির এই ফোনটি। এতে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা এবং ২ ম্যাগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা।  মোবাইলটির ডিসপ্লে ৬.২২” IPS LCD রেজ্যুলেশনের। র‍্যাম পাবেন ৩ জিবি, স্টোরেজ ৩২ জিবি, ব্যাটারি ৫০০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার।

Huawei Y6 Pro (2019)

১২৯৯৯ টাকার মোবাইলটি মাঝারি মানের দামের মধ্যে মারাত্মক ফ্যাশনেবল। সাথে রয়েছে ৬.০৯” IPS LCD রেজ্যুলেশনের দারুণ ডিসপ্লে। মোবাইলটির র‍্যাম ৩ জিবি, স্টোরেজ ৩২ জিবি, ব্যাটারি ৩০২০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার।  তুলনামূলক অনেক কম দামের মধ্যেই পাচ্ছেন ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ও ৮ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা। অবশ্য গেমিং এর জন্য খুব বেশি সুবিধাজনক নয় এই মোবাইলটি। 

Infinix Hot 10

যারা মোবাইল খুব বেশি পরিমান ব্যাবহার করে, বা মোবাইলটিকে বিশ্রাম দেয়ারই সুযোগ হয় না তাদের জন্য মাত্র ১2৯৯০ টাকার মধ্যে অনেক ভালো একটি মোবাইল বলা যায়। ৬.৭৮” IPS LCD রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে সহ মোবাইলটির র‍্যাম ৪ জিবি, স্টোরেজ ১২৮ জিবি, ব্যাটারি ৫২০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার।  

তুলনামূলক অনেক কম দামের মধ্যেই পাচ্ছেন ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল করে ২ টি ডেপথ ও ম্যাক্রো সেন্সর দেয়া রেয়ার ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং লো লাইট সেন্সর। 

Realme Narzo 20

মোবাইলটির অন্যতম সেরা দিক হলো এর ক্যামেরা কোয়ালিটি। মাত্র ১৩৯৯০ টাকা দামের মধ্যে পাচ্ছেন ৪৮ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেলের একটি আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেলের একটি ম্যাক্রো সেন্সর ক্যামেরা। আর ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা তো আচেই। মোবাইলটির ডিসপ্লে ৬.৫” IPS LCD রেজ্যুলেশনের। র‍্যাম পাবেন ৪ জিবি, স্টোরেজ ৬৪ জিবি, ব্যাটারি ৬০০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১৮ ওয়াটের রিভার্স চার্জিং ফাস্ট চার্জার। 

অর্থাৎ এই মোবাইলটির সাহায্যে আপনি অন্য আরেকটি মোবাইল চার্জ করতে পারবেন। এছাড়াও এর গেমিং পার্ফরমেন্সও অসাধারন।

Xiaomi Redmi 9 

মাঝারি দামের মধ্যে বেশ ভালো কোয়ালিটির ক্যামেরার পার্ফর্মেন্স চাইলে এই মোবাইলটিও সেরাদের লিস্টে। মাত্র ১৪৯৯৯ টাকা দামের মধ্যে পাচ্ছেন ১৩ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা। আরো রয়েছে ৮,৫ ও ২ মেগাপিক্সেলের ৩ টি রেয়ার ক্যামেরা। এরা যথাক্রমে আল্ট্রা ওয়াইড, ম্যাক্রো, ডেপথ ও ওয়াইড র‍্যাম পাবেন ৪ জিবি, স্টোরেজ ৬৪ জিবি, ব্যাটারি ৫০২০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার। মোবাইলটির ডিসপ্লে ৬.৫৩” IPS LCD রেজ্যুলেশনের।

Walton Primo RX7

আসুন জেনে নেই আমাদের দেশেরই পণ্য ওয়াল্টনের বাজেট ফ্রেন্ডলি মোবাইলটি কেমন। ১২৯৯৯ টাকার ফোনটিতে আপনি পাচ্ছেন ৬.৩” IPS LCD রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে সহ ৪ জিবি র‍্যাম, স্টোরেজ ৩২ জিবি, ব্যাটারি ৩৯০০ মিলি এম্পিয়ার। সাথে পাবেন ফাস্ট চার্জিং চার্জার। 

তুলনামূলক অনেক কম দামের মধ্যেই পাচ্ছেন ১৬ মেগাপিক্সেল এর মেইন ক্যামেরা ও  ১৩ মেগাপিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা। বাজেটের মধ্যে বেশ ভালো কোয়ালিটির ফোনটি সবদিক দিয়ে সেরা হলেও গেমিং এর জন্য তেমন সুবিধাজনক নয়। 




Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url